Fairness tips for men in Bengali – পুরুষদের জন্য সুষ্ঠুতা টিপস

আজকালকার দিনে শুধুমাত্র মহিলারাই নয় বরং পুরুষরাও নিজের সৌন্দর্য নিয়ে খুব চিন্তিত থাকেন। ওরা সব সময় নিজেকে সবার সামনে ভালো ভাবে প্রস্তুত করতে চান। যখন োর ভীড়ে নিজেকে আলাদা দেখাতে চান তো এই সময় ত্বকের রং ও একটা কারক হয়ে দাড়ায়। আপনি বাজারে অনেক রকম ক্রিম এবং লোশন পেয়ে যাবেন কিন্তু এগুলো ত্বকের জন্যে অটো ভালো হয়না।

যদি আপনার ত্বক সংবেদনশীল রকমের, তাহলে আপনার জন্যে সবরকম ক্রিম ছেড়ে ঘরোয়া উপায় ব্যবহার করা খুবই শ্রেয়স্কর। রং ফর্সা করার ঘরোয়া উপায় অনেক প্রভাব হয় কেননা এগুলো সব রকম সাইড ইফেক্ট (side effect) থেকে মুক্ত থাকে। নীচে পুরুষদের জন্যে ফর্সা হওয়ার কিছু প্রভাবী উপায় দেওয়া রয়েছে।

পুরুষদের জন্য সুষ্ঠুতা টিপস পরিষ্কার ত্বক পেতে (Fairness tips for men get fair skin)

ফর্সা ত্বকের জন্যে দুধ (Milk for fair skin)

যখন কথা ফর্সা হওয়ার প্রাকৃতিক উপায়ের হয়, তখন দুধ কে সবচেয়ে প্রভাব ও তেজ উপায় বলা হয়। দুধে ত্বক কে পুষ্টি দেওয়ার, ত্বকের রং পরিষ্কার করার এবং ক্লেইনজিঙের (cleansing) গুন থাকে যা এটাকে ত্বক ফর্সা করার একটা প্রাকৃতিক উপায় বানায়। আপনি দুধে মুলতানি মাটির মতো অন্য জিনিস মিশিয়ে একটা ফেস মাস্ক বানাতে পারেন। বৈকল্পিক রূপে আপনি দুধ সোজা নিজের ত্বকে ও লাগাতে পারেন। মুখে সোজা রূপে দুধ লাগালে আপনি তক্ষণা ফর্সা হয়ে যাবেন। এই উপায়ের জন্যে, একটু দুধ নিন এবং এটা রুইয়ে লাগান। অতিরিক্ত দুধ রুই থেকে চিপে বের করে নিন এবং এটা নিজের মুখে লাগান। এই দুধটা নিজের মুখে ১৫ মিনিট মত রাখুন এবং তারপর জল দিয়ে ধুয়ে নিন।

ফর্সা ত্বকের জন্যে বেসন এবং মুলতানি মাটি (Besan and multani mitti face mask for fair skin)

এই বিধি অনেক পুরোনো এবং অনেক সময় থেকে ফর্সা ত্বক পাওয়ার জন্যে ব্যবহার করা হয়। এটার জন্যে বেসন, মুসুরির ডাল এবং মুলতানি মাটি নিন। আপনি বেসন এবং লাল ডাল পিষে নিন। বৈকল্পিক রূপে গ্রাইন্ডারে (grinder) একটু জল ঢালুন এবং একটা পেস্ট তৈরী করুন। একটা পাত্রে সব সামগ্রী নিন এবং এরমধ্যে এক ফোঁটা হলুদ এবং আধা চামুচ পেঁপের মণ্ড মিশিয়ে দিন। এসব ভালো করে মেশান এবং এটা দিয়ে মাস্ক তৈরী করুন। এই মাস্ক নিজের ত্বকে প্রায় ১৫ মিনিট অব্দি রাখুন এবং জল দিয়ে ধুয়ে নিন। সপ্তাহে এটা ৩ বার করে ব্যবহার করুন।

ফর্সা ত্বকের জন্যে বাদাম ও দুধের ফেস মাস্ক (Almond and milk face mask for fair skin)

এই বিধি অনেক সহজ এবং এটা বানাতে কেবল দুটি সামগ্রী লাগে। এই বিধির জন্যে ৫-৬টা বাদাম নিন এবং এগুলো সারারাত দুধে ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে বাদাম কে দুধের সাথে পিষে একটা নরম পেস্ট তৈরী করুন। এই পেস্ট টা নিজের মুখে লাগান এবং প্রায় আধা ঘন্টার জন্যে নিজের মুখের উপরে রেখে ধুয়ে নিন। ভালো পরিণামের জন্যে এই বিধি নিয়মিত রূপে ব্যবহার করুন।

দালিয়া এবং হলুদ ফেস মাস্ক (Oats and turmeric face mask)

যদি আপনি তক্ষণা ফর্সা হতে চান তাহলে এই বিধি সবচেয়ে উত্তম হয়। এটার জন্যে আপনার ২ চামুচ দালিয়া পাউডার, ১ চামুচ লেবুর রস এবং এক ফোটা হলুদের দরকার হবে। এসব উপাদ একটা পাত্রে নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে একটা মিশ্রণ তৈরী করুন। এই ফেস মাস্ক নিজের মুখে লাগান এবং ১৫ মিনিট ছেড়ে দেওয়ার পরে জল দিয়ে ধুয়ে নিন।

কমলার রস এবং হলুদ (Orange juice and turmeric)

কমলার রস আপনার ত্বকের উপরে খুব চমকারী ভাবে কাজ করে এবং মুখের উপরকার টৈন এবং মৃত কোশিকা দূর করে প্রাকৃতিক ভাবে উজ্জ্বল ও ফর্সা ত্বক প্রদান করে। ২চামুচ কমলার রস এবং এক ফোঁটা হলুদ পাউডার মিশিয়ে এই মিশ্রণটা নিজের মুখে লাগান। এটা নিজের মুখের দুপুরে প্রায় ২০ মিনিট রেখে জল দিয়ে ধুয়ে নিন। এই বিধি নিয়মিত রূপে ব্যবহার করুন এবং কিছু দিনেই অন্তর অনুভব করুন।

কমলার খোসা এবং য়োগার্ট (Orange peel and yoghurt)

কমলার রসের মতোই কমলার খোসার গুঁড়ো ও আপনার ত্বক থেকে মৃত কোশিকা দূর করতে এবং ভেতর থেকে পুষ্টি দিতে সাহায্য করে। দুই চামুচ কমলার খোসার গুঁড়ো এক চামুচ য়োগার্টের সাথে মিশিয়ে একটা পেস্ট তৈরী করুন। এই পেস্ট নিজের মুখে লাগান এবং প্রায় ১৫ মিনিটের জন্যে ছেড়ে দিন। যদি আপনি সপ্তাহে দুই বার এটা ব্যবহার করবেন তাহলে আপনি অনেক অন্তর অনুভব করবেন।